,
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৯:৪৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মাদারিপুরে পল্লী বিদ্যুতের ভূতুড়ে বিলে বিপাকে গ্রাহক কক্সবাজার জেলা কল্যাণ সমিতির গেট টুগেদার অনুষ্ঠিত ফুলবাড়িয়া উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোড়া প্রতিকের ব্যাপক সাড়া মসিকে জাতীয় কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ উদ্বোধন গোবিন্দগঞ্জে চলতি বোরো মৌসুমের অভ্যন্তরীণ ধান, চাল ও গম সংগ্রহের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন এমপি আনোয়ারুল আজিমের হত্যাকান্ড মর্মান্তিক, দু:খজনক ও অনভিপ্রেত : পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশে আমনের উৎপাদন বাড়াতে ৪০ কোটি টাকার প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে দক্ষ মানব সম্পদ তৈরিতে ইউসেফ বাংলাদেশ কাজ করে যাচ্ছে : স্পিকার  নওগাঁর সুমিষ্ট ও সুস্বাদু আম বাজারে আসা শুরু তিতাসের বন্ধ কূপ থেকে পরীক্ষামূলক গ্যাস উত্তোলন শুরু

অনিয়ম-দুর্নীতি-ক্ষমতার অপব্যবহার, অপসারণ দাবিতে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২০ জুলাই, ২০২২
  • ১৮৬ Time View

এস এম মাসুদ রানা, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বিরামপুরে উপজেলার ৪ নং দিওড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক মন্ডল কর্তৃক প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঈদ-উল- আযহা উপলক্ষে হতদরিদ্রদের জন্য ভিজি এফ এর ১০ কেজি চাল বিতরণে দুর্নীতি অনিয়ম ও ৫০ বস্তা আত্মসাতের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (২০জুলাই) সকালে কলেজবাজার মহাসড়কের পাশে ঘন্টা ব্যাপি এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত মানববন্ধনে দিওড় ইউনিয়নের সভাপতি হাফিজুর রহমান বলেন, উপজেলার দিওড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক মন্ডল পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার চাল প্রতিবস্তা ৩০ কেজি হিসেবে ১ হাজার ৪’শত বস্তা চালের মধ্যে ১ হাজার ৩’শত ৪৩ বস্তা চাল হতদরিদ্র, অসহায় ও দুস্থদের মাঝে কাউকে ৫ কেজি, কাউকে ৩ কেজি করে চাল বিতরণ করেন। সেই সঙ্গে ৫৭ বস্তা চাল আত্মসাৎ এর জন্য রেখে চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক নিজেই বলেন, চাল শেষ হয়ে গেছে। আর কাউকে চাল দেওয়া যাবেনা। আপনারা বাড়ি চলে যান। কিন্তু, সরকারি ভাবে জনপ্রতি কার্ডধারীকে ১০ কেজি করে চাল দেওয়ার নিয়ম থাকলেও। ওই চেয়ারম্যান সরকারি নিয়মকে তোয়াক্কা না করে কাউকে ৫ কেজি, কাউকে ৩ কেজি করে চাল দেন এবং কেউ কেউ কার্ড থাকলে চাল না পেয়ে বাড়ি ফিরে যান। চাল না পাওয়াই অনেকের মধ্যে ক্ষোভ ও সন্দেহের দানা বাঁধে।

এ ঘটনায় শুক্রবার (৮ জুলাই) রাতে ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় জনসাধারণ ও চাল বঞ্চিত বিক্ষুব্ধ জনসাধারণ উপজেলার দিওড় ইউনিয়ন পরিষদ ঘিরে রেখে বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরিমল কুমার সরকারকে ফোনে অভিযোগ করে বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের অনেক চাল লুকিয়ে রাখা হয়েছে। আমরা চাল পাইনি। এমন সংবাদের ভিত্তিতে বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরিমল কুমার সরকার তাৎক্ষণিক ভাবে থানা পুলিশসহ ৪নং দিওড় ইউনিয়ন পরিষদে উপস্থিত হলে হয়ে বিক্ষুব্ধ জনতার উপস্থিতিই ইউনিয়ন পরিষদের প্রতিটি ঘরে তল্লাশী করেন। তল্লাশী করে তিনি পরিষদের সভাকক্ষের ঘর থেকে ৫০ বস্তা চাল ও ইউপি সচিবের ঘরের ভিতর পায়খানা (টয়লেট) থেকে ৭ বস্তা চাল পাওয়া যায়। পরে ৫৭ বস্তা চাল জব্দ দেখিয়ে সভাকক্ষের ঘরে রেখে ঘরটি সিলগালা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরিমল কুমার সরকার।

উক্ত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ৪নং দিওড় ইউনিয়নের সভাপতি হাফিজুর রহমান,সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আনারুল ইসলাম, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি গোলাম রব্বানী মাষ্টার, ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম বাদশা, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক মোকাদ্দেস হোসেন প্রমুখ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরও খবর পড়ুন:

Jonogoner Khobor - জনগণের খবর পোর্টালের গুরুত্বপূর্ণ লিংকসমূহ:

 আমাদের পরিবার

About Us

Contact Us

Disclaimer

Privacy Policy

Terms and Conditions

Design & Developed by: Sheikh IT
sheikhit

জনগণের খবর পোর্টালের কোনো প্রকার নিউজ, ছবি কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যতীত অন্য কোথাও ব্যবহার করা যাবে না। ধন্যবাদ।